শরীর ভালো রাখতে রাতে হালকা খাবার খাওয়া বেশ উপকারী। এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা। এ অভ্যাস শরীরের অনেক সমস্যা প্রতিরোধে সাহায্য করে। ২০১৩ সালে জার্নাল ওবেসিটির প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, বাড়তি ওজন নিয়ন্ত্রণে খাবারের জন্য সঠিক সময় নির্বাচন বেশ বড় ভূমিকা পালন করে। যাঁরা ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে চান, তাঁদের এ বিষয় খেয়াল রাখা উচিত। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে লাইফস্টাইল-বিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাই জানিয়েছে রাতে হালকা খাবার খেলে কী উপকার হয়, সে কথা।

হজম ভালো করে : রাতে ভারী খাবার খাওয়া হজমে গণ্ডগোল করে। হালকা খাবার সহজে হজম হয়ে যায় এবং পেটের জন্য আরামদায়ক হয়। রাতে হালকা খাবার খাওয়া এসিডিটি, পেট ফোলা ভাব, বুক জ্বালা-পোড়ার সমস্যা রোধে সাহায্য করে। রাতে হজমের সমস্যা পরবর্তী দিনের কার্যক্রমের ওপর বাজে প্রভাব ফেলে। তাই রাতে হালকা খাবার খাওয়া এবং তাড়াতাড়ি খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

ভালো ঘুমের জন্য : রাতে ভারী খাবার না খাওয়াই ভালো। এটি ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায়। বিশেষজ্ঞরা বলেন, ভালো ঘুমের জন্য রাতে ভারী খাবার, ঝালযুক্ত খাবার এবং ক্যাফেইন (চা, কফি) জাতীয় খাবার এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। হালকা খাবার দেহের হরমোনকে শিথিল করতে সাহায্য করে।

মেদ কম জমায় : শরীরে চর্বি কম জমাতে চাইলে রাতে হালকা খাবার খাওয়া ভালো। আপনি যদি ভুল খাবার ভুল সময়ে খান, তবে এটি মেদ বাড়িয়ে দিতে পারে। বিশেষজ্ঞরা বলেন, যেহেতু রাতে আমরা কম কাজ করি, নড়াচড়া কম করি, তাই ভারী খাবার খেলে ক্যালরি কম পোড়ে।

শর্করার মাত্রা ঠিক রাখে : রক্তের শর্করার মাত্রা ঠিক রাখতে ঘুমানোর এক থেকে দুই ঘণ্টা আগে হালকা খাবার খাওয়া উচিত। এটি রাতের বেলার হাইপোগ্লাইসেমিয়া নিয়ন্ত্রণেও সাহায্য করে।

শক্তি বাড়ায় : রাতে হালকা খাবার খাওয়া মস্তিষ্কের কার্যক্রমকে ভালো রাখে এবং মেজাজ ঠিক রাখতে সাহায্য করে। বিশেষজ্ঞরা বলেন, রাতে তাড়াতাড়ি খাওয়া এবং হালকা খাবার খাওয়া পরবর্তী দিনের জন্য শরীরে শক্তি জোগাতে সাহায্য করে।