আরামপ্রিয় জাতি হিসেবে আমাদের রয়েছে আলাদা একটা সুনাম। একবার রান্না করে খাবার ফ্রিজে রেখে দিনের পর দিন গরম করে খাওয়া আমাদের অভ্যাস হয়ে দাঁড়িয়েছে। এতে হয়তো আপনি বার বার রান্না করা থেকে মুক্তি পাচ্ছেন, কিন্তু দিনে দিনে নিজেকেসহ পরিবারের সবাইকে যে ঠেলে দিচ্ছেন বিরাট স্বাস্থ্যঝুঁকিতে সেটা কি ভেবে দেখেছেন। তবে সব খাবার নয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, কিছু কিছু খাবার আছে যেগুলো দ্বিতীয়বার গরম করে খেলে আপনি পড়তে পারেন স্বাস্থ্যঝুঁকিতে। চলুন জেনে নেই সেসব খাবার সম্পর্কেই।

ভাত: ভাত আমাদের প্রধান খাবার। সব সময়ই এই খাবারটি গরম করে খাওয়া হয়। অথচ ভাত বারবার গরম করতে নেই। ভাতে থাকা ব্যাকটেরিয়া গরমের কারণে আরো বেশি ক্ষতিকর হয়ে ওঠে।

আলু: নানা ধরনের পুষ্টি উপাদান রয়েছে আলুতে। কিন্তু স্বাভাবিক তাপমাত্রায় একে দীর্ঘ সময় রেখে দিলে তা বিষাক্ত হয়ে উঠতে পারে। একই ঘটনা ঘটে যখন বারবার গরম করা হয়।

মুরগির মাংস: এটি উচ্চমাত্রার প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার। দিনে দুই-তিনবার গরম করলেই এটা হজমে সমস্যা করে। ফ্রিজে রাখলে সালাদ বা স্যান্ডউইচের সঙ্গে খেয়ে নেওয়া উচিত। বারবার গরম করা উচিত নয়।

পালং শাক: আয়রন ও নাইট্রেটে পূর্ণ এই স্বাস্থ্যকর খাবার দ্বিতীয়বার গরম করলেই ঝামেলা। এতে পালংয়ের নাইট্রেট ক্ষতিকর নাইট্রাইটে পরিণত হয়। ক্যান্সারের ঝুঁকি বৃদ্ধির অন্যতম কারণ হতে পারে নাইট্রাইট।

ডিম: পুষ্টিতে ভরপুর এই খাবার বারবার গরম হতে পছন্দ করে না। উচ্চ তাপমাত্রায় একে গরম করা হলে খাদ্য উপাদান বিষাক্ত হয়ে ওঠে এবং হজম হতে চায় না।

মাশরুম: এতে নানা ধরনের প্রোটিনের জটিল মিশ্রণ থাকে। একবার রান্না করে একবারেই খেয়ে ফেলা উচিত। বারবার গরম করলে এর প্রোটিনের গঠন নষ্ট হয়ে যায়।

শালগম: স্যুপ বা তরকারিতে জনপ্রিয় একটি আইটেম। শালগমের নাইট্রেট দ্বিতীয়বার গরম করলেই বিষাক্ত নাইট্রাইট উৎপন্ন করে।

ভোজন রসিক বাঙ্গালির খাদ্য প্রীতি বরাবরই অনেক বেশি। খাবার বেশি হয় হোক, কিন্তু কম হলে চলবে না। তাই অধিকাংশ পরিবারেই প্রত্যেক বেলার খাবার বেঁচে যায়। অপচয় রোধ করতে নিয়মিত সেই খাবার ঢুকে পড়ে ফ্রিজে। পরবর্তীতে পুনরায় গরম করা খাবার খেয়ে তৃপ্তির ঢেঁকুর তোলা! কিন্তু এমন কাজ আর দ্বিতীয়বার নয়। গেলেন না হয় দিনে তিনবার রান্না ঘরে। তাতে ক্ষতি কি?