বর্তমানে বেশির ভাগ মেয়েরাই পিরিয়ডের সমস্যায় ভোগেন। আপনি কর্মরতা হোন বা গৃহবধূ— কোন না কোনও বয়সে হয়তো এই সমস্যায় পড়েছেন। অথবা আপনারই কোনও প্রিয়জন পিরিয়ডের সমস্যায় ভুগছেন। জানেন কি কেন আপনার এই সমস্যা হয়? জেনে নিন অনিয়মিত পিরিয়ডের কয়েকটি কারণ। এর কোনও লক্ষণ আপনার মধ্যেও থাকলে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযাগ করুন।

অতিরিক্ত ডায়েট : অতিরিক্ত ডায়েট করলে কিংবা হঠাৎ করেই অস্বাভাবিক ওজন কমে গেলে পিরিয়ডের সমস্যা হয়।

বিড়ম্বনা যখন ব্যায়াম : অতিরিক্ত ব্যায়াম করলেও পিরিয়ডে দেরি হতে পারে।

থাইরয়েডের ভারসাম্যহীনতা : থাইরয়েড হরমোনের ভারসাম্যহীনতায় বেশিরভাগ মেয়ের পিরিয়ডের সমস্যা হয়।

পলিসিস্টিক ওভারি সিন্ড্রোম : পলিসিস্টিক ওভারি সিন্ড্রোম একটি হরমোনাল সমস্যা। শরীরের জরুরি তিনটি হরমোন ইস্ট্রোজেন, প্রোজেস্টেরন এবং টেসটোস্টেরন উৎপাদন কমে যাওয়ায় পলিসিস্টিক ওভারি সিন্ড্রোমের সমস্যা হয়। ফলে পিরিয়ড দেরিতে হয়।

স্ট্রেস : অতিরিক্ত মানসিক চাপের কারণে পিরিয়ডে দেরি হয়।