রান্নার অপরিহার্য উপাদান লবণ; যা খাবারকে সুস্বাদু করা ছাড়াও সিদ্ধ হতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে মানবশরীরে প্রয়োজনীয় সোডিয়ামের জোগান দেয় এবং রক্তপ্রবাহ অব্যাহত রাখে। তবে মাত্রাতিরিক্ত লবণ গ্রহণের ফলে মৃত্যু হতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, একজন মানুষের দৈনিক সর্বোচ্চ ৫ গ্রাম লবণ খাওয়া স্বাস্থ্যসম্মত। এই নিরাপদ মাত্রার থেকে অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ মানুষকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিতে পারে। এমনকি মাত্রাতিরিক্ত লবণ গ্রহণকে উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, ক্যান্সারসহ বিভিন্ন অসংক্রামক কঠিন রোগের কারণ হিসেবেও উল্লেখ করা হয়ে থাকে।

সম্প্রতি রাজধানীর একটি বস্তিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ওই বস্তির মানুষ দৈনিক গড়ে ৭ দশমিক ৮ গ্রাম লবণ খায়। যেখানে বাজারে প্রচলিত প্যাকেটজাত খাবারেও পাওয়া গেছে অতিরিক্ত লবণ। যা হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ায়।

গবেষকরা বলছেন, প্রয়োজনের অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ উচ্চ রক্তচাপের কারণ হতে পারে। দেশে ১৫ শতাংশ মানুষ উচ্চ রক্তচাপে ভুগছে। আর ৫৯ শতাংশ মৃত্যুর কারণ বিভিন্ন অসংক্রামক ব্যাধি। মাত্রাতিরিক্ত লবণ গ্রহণের ঝুঁকি থেকে বাঁচতে জনসচেতনতা বৃদ্ধির উপর জোর দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

অতিরিক্ত লবণের ক্ষতি থেকে বাঁচতে শৈশব থেকেই বাচ্চাদের কম লবণযুক্ত খাবারে অভ্যস্ত করার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। আর ব্যক্তি পর্যায়ে খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনার পাশাপাশি প্রক্রিয়াজাত খাবারে লবণ ব্যবহারে নীতিমালা করারও পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।